What is Web Hosting

আসসালামু আলাইকুম, খলিফা নেটওয়ার্কে আপনাকে স্বাগতম!
কেমন আছেন? আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছেন।

 

আজ আমরা আলাপ করবো ওয়েব হোস্টিং এর বিস্তারিত নিয়ে, আমাদের আগের ১টি পোষ্টে আমরা ডোমেইন এবং হোস্টিং এর মোটামুটি ধারণা পেয়েছিলাম, তারপরের পোষ্টে ডোমেইনের বিস্তারিত জেনেছি।
এই পোষ্টে আমরা ওয়েব হোস্টিং এর বিস্তারিত জানবো।

আমারা যারা অনলাইনে বিভিন্ন ওয়েবসাইট / ব্লগ ব্যবহার করি, কিন্তু অনেকেই যানিনা ওয়েব হোস্টিং কি বা এটা কি কাজে ব্যবহার হয়?

আসলে ছোট হোক বড় হোক যেকোন ওয়েবসাইট / ব্লগেই কিন্তু ওয়েব হোস্টিং প্রয়োজন হয়, বিভিন্ন ব্লগ আমাদের ফ্রি ওয়েবসাইট / ব্লগ তৈরী করার সুযোগ দিয়ে থাকে যেমন ধরুনঃ গুগল ব্লগ, ওয়ার্ডপ্রেস.কম ইত্যাদি। আমরা যখন ফ্রি তে ব্লগ / ওয়েবসাইট পাই এবং যেহেতু আমরা কখনো কোন হোস্টিং কিনিনি বা কিনতে হয়নি সেহেতু এই ব্যাপারে আমরা ততটা বুঝিনা বা বুঝলেও তেমন গুরুত্ব দেয়নি। কারণ আমরা ফ্রি তে পেলে আলকাতরাও লুঙ্গি ভোরে নেই। 😛
কিন্তু যারা প্রফেশনাল ভাবে ১টি ব্লগ / ওয়েবসাইট বানাতে চান তাদের অবশ্যই ওয়েব হোস্টিং বিষয়টি যানতে হবে।

মোটামুটি অনেকেই ডোমেইন কি তা সম্পর্কে জানেন, কিন্তু হোস্টিং জিনিষটা অনেকের কাছেই অজানা। আপনি যদি একটি আপনার / আপনার প্রতিষ্ঠানের নাম ১টি ডোমেইন কিনেন তাহলে অবশ্যই সেই ডোমেইন লাইভ রাখার জন্য আপনাকে হোস্টিং কিনতে হবে।
ধরুন আপনি ১টি ডোমেইন কিনলেন তারমানে আপনি আপনার জন্য ইন্টারনেটে একটি নাম কিনেছেন, এখন আপনার ডোমেইনটিকে দিনে ২৪ঘন্টা, সপ্তাহে ৭দিন এবং বছরে ৩৬৫দিন লাইভ রাখতে হবে মানে ২৪/৭/৩৬৫ দিন অনলাইনে রাখতে হবে।
এর জন্য অবসসই আপনার দরকার ১টি হোস্টিং। আপনার / আপনার কোম্পানির সকল তথ্যকে মানুষের কাছে অনলাইনের মাধ্যমে তুলে ধরার সবচেয়ে জনপ্রিয় ও সবচেয়ে সহজ মাধ্যম হচ্ছে ওয়েবসাইট।
বর্তমান বিশ্বে কম্পিউটার বা ইন্টারনেট ব্যবহার মানেই হচ্ছে আপনি ওয়েবসাইট সম্পর্কে অবগত আছেন।
খুব সহজ ভাবে বলা যায়, ওয়েবসাইট হচ্ছে আপনার তথ্যকে অনলাইনে সবার সামনে উপস্থাপন করার সহজ রাস্তা- আপনি চাইলে আপনার সিভি, ফটো, ভিডিও, টেক্সট বা যেকোনো কিছুই ওয়েবসাইটে দিয়ে দিতে পারেন।

আপনার সকল তথ্য দিয়ে আপনার ওয়েবসাই সুন্দর করে ফুটিয়ে তোলা কিন্তু ওয়েব ডেভেলপারের কাজ।
সুতরাং আপনার ওয়েবসাইট / ব্লগটি অনলাইনে সবার জন্য দেখার জন্য উপযোগী করার কাজ ওয়েব হোস্টিং দিয়েই করা হয়ে থাকে।

ধরুন আপনার ১টি ওয়েবসাইটকে তুলনা করা হলো আপনার প্রতিষ্ঠানের অফিস বিল্ডিং হিসাবে, আর আপনার দেয়া সেই সিভি, ফটো, ভিডিও, টেক্সট বা অন্য সকল তথ্য বা কনটেন্টই হবে এর আসবাবপত্র।
ওয়েব হোস্টিংকে তুলনা করা যেতে পারে আপনার অফিস বিল্ডিংয়ের জন্য জায়গা কেনা এবং সে জায়গায় এক বা একাধিক বাড়িটি তৈরির কাজের সাথে।
সবকিছু কমপ্লিট হবার পরেই ভিজিটররা আপনার ওয়েবসাইটি ব্যবহার করার সুযোগ পাবে। তাই বলা যায় কোন ওয়েব সাইট যে জায়গা থেকে পরিচালিত হবে সেটাই ওই ওয়েবসাইটের হোস্টিং।
সাধারণত আমরা দেখে থাকি যেকোন ওয়েবসাইটে কিছু টেক্সট এবং সাথে কিছু মাল্টিমিডিয়া (Picture / Video) দিয়ে সাজানো থাকে। এই টেক্সট এবং মাল্টিমিডিয়া (Picture / Video) গুলো যে জায়গা বা Host দখল করে সেটিই হচ্ছে সেই সাইটের হোস্টিং।

Web Hosting
সব থেকে ভাল হয় Domain and Hosting উদাহরন দিয়ে বোঝানো:-
ধরুন:

  • আপনার একটি বাড়ি আছে,
  • বাড়িটি ১০/১৫ কাঠা জমির উপরে আছে,
  • সেই বাড়ির ১টি ঠিকানা বা হোল্ডিং নাম্বার রয়েছে, যেই ঠিকানা বা হোল্ডিং নাম্বার দিয়ে আপনার বাড়িটি খুব সহজেই যেকেউ খুঁজে নিতে পারবে। এবার আসি ওয়েবসাইট কিভাবে হয়,
  • এখানে আপনার বাড়ি হচ্ছে আপনার ওয়েবসাইটের কনটেন্ট,
  • বাড়িটি যেই জমির উপরে রয়েছে সেটি হচ্ছে আপনার ওয়েবসাইটের হোস্টিং এবং
  • বাড়ির ঠিকানা / হোল্ডিং নাম্বারটি হচ্ছে আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেইন নেম।

সুতরাং যেকেউ আপনার বাসার ঠিকানা / হোল্ডিং নাম্বার মানে আপনার ওয়েবসাইটের / ডোমেইনের নাম জানলেই আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে পারবে।

 

 

আপনি যদি আপাদের ওয়েবসাইটে নতুন হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আমাদের ওয়েবসাইটের লিংক সেভ করে রাখুন, আমাদের ফেইসবুক পেজ + ইউটিউব চ্যানেল-এ সাবস্ক্রাইব করুন।
এবং অবশ্যই খলিফা নেটওয়ার্কের পাশে থাকবেন।